নিকোলা টেসলা : ম্যান অফ দা ফিউচার-২

নিকোলা টেসলা বনাম থমাস আলভা এডিসন যুদ্ধ :

প্যারিসে নিকোলা টেসলার অসামান্য কাজের এবং জ্ঞানের জন্য সহজেই নজরে চলে আসেন উপরের মহলের। এবার ডাক দেন স্বয়ং কোম্পানির প্রেসিডেন্ট টমাস আলভা এডিসন। ১৮৮৪ সালে নিকোলা টেসলা আমেরিকা পাড়ি জমান এডিসনের চিঠি আর ৫০ সেন্ট পকেটে নিয়ে। সেখানে নিকোলা টেসলা কাজ করতে শুরু করেন সরাসরি এডিসনের সাথে থেকে। এডিসন আবিষ্কৃত ডিসি মোটর নিয়ে কাজ করাই ছিল টেসলার মূল কাজ।

ডিসি মোটরের সবচেয়ে বড় অসুবিধা হচ্ছে ডাইরেক্ট কারেন্ট (ডিসি) তৈরি যেমন ব্যয়বহুল তেমনি নিয়ন্ত্রণও বেশ ঝামেলার। ডিসি কারেন্টের বিদ্যুতের জন্য কিছু দূর পর পর স্টেশন তৈরি করার দরকার পড়ে বিদ্যুৎ পরিবহনের জন্য। এডিসন এই সমস্যা সমাধানের দায়িত্ব দেন টেসলার উপর। কাজের বিনিময় হিসাবে এডিসন ৫০ হাজার ডলার পারিশ্রমিক দেবার প্রতিশ্রুতিও দেন নিকোলা টেসলাকে। ৬ মাসের মাথায় টেসলা নিয়ে আসেন তার যুগান্তকারী আবিষ্কার এসি মোটর এবং এসি কারেন্ট প্রযুক্তি। পারিশ্রমিক দেবার পরিবর্তে এডিসন তাকে বলেছিলেন, “তুমি আমেরিকান ব্যঙ্গ ধরতে পারোনি টেসলা!” ১০ ডলার থেকে ১৮ ডলার অর্থাৎ মাত্র ৮ ডলার বেতন বাড়াতে রাজী হন এডিসন। রাগে অপমানে চাকরি ছাড়েন টেসলা।

 

এডিসনের চাকরি ছেড়ে জেদের বশে ১৮৮৫ সালে শুরু করলেন তার নিজের কোম্পানি “টেসলা ইলেকট্রিক লাইট এন্ড ম্যানুফ্যাকচারিং”। প্রথমে উদ্যোক্তারা সাহস পায়নি নতুন জায়গায় কাজ করতে; ফলাফল সর্বহারা হলেন। এ সময় তিনি বিভিন্ন ইলেকট্রিকাল কোম্পানিতে ২ ডলার বেতনে রিপেয়ার ম্যানের চাকরি শুরু করেন ! অবশেষে ১৮৮৬ সালে আলফ্রেড এস ব্রাউনের সহায়তায় ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন কোম্পানির সহায়তায় নতুন করে কাজ শুরু করেন।

 

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যানহ্যাটন শহরে টেসলা গড়ে তোলেন তার নিজের ল্যাবরেটরি। সেখান থেকেই ১৮৮৭ সালে নিজের ডিজাইন করা ইন্ডাকশন মোটর তৈরি করেন। আর এই ইন্ডাকশন মোটরের মাধ্যমে ইউরোপের চেহারা বদলে যায়। এই ইন্ডাকশন মোটর দিয়ে টেসলা আকাশের নীল বজ্রকে নিয়ে আসেন ঘরে ঘরে এসি কারেন্ট রূপে। ১৮৯৫ সালে ডিন এডমিন্সের সহায়তায় নিকোলা টেসলা কোম্পানি নতুন করে গড়ে তোলা হয়।

এসি কারেন্টের সবচেয়ে বড় সুবিধা এটি সহজলভ্য, সহজে বহনযোগ্য এবং সস্তা। শুরু হয় নিকোলা টেসলা এবং থমাস এডিসনের স্নায়ু যুদ্ধ। অনেকে একে বলেন “বিদ্যুতের যুদ্ধ”। থমাস এডিসন নানারকম কুৎসা রটাতে শুরু করেন টেসলার বিপক্ষে। এমনকি লোকজনকে মিডিয়ার মাধ্যমে ভুল সংবাদ প্রচার করতেও দ্বিধা করেননি এডিসন! নিকোলা টেসলার এসি কারেন্ট শুধু যুক্তরাষ্ট্রে আটকে থাকেনি বরং ছড়িয়ে পড়েছে সারা পৃথিবীতে। বলা হয় আধুনিক মানব সভ্যতা দাঁড়িয়ে আছে টেসলার কাজের উপর!

By মোঃ খুরশিদুল আলম শান্ত

তথ্যসুত্র :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *